ক্যাম্পাস

যবিপ্রবিতে তিন দিনব্যাপী আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় অ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা শুরু

যবিপ্রবি প্রতিনিধি:

সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন, জাতীয় পতাকা, ফেডারেশনের পতাকা ও স্ব স্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন, বেলুন উড়ানো, মশাল প্রজ্বালনসহ নানা আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) তিন দিনব্যাপী আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় অ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে।

আজ বুধবার সকালে যবিপ্রবির কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যবিপ্রবির রিজেন্ট বোর্ডের সদস্য ও রেডিয়েন্ট ফার্মাসিটিউক্যালসের চেয়ারম্যান মো. নাসের শাহরিয়ার জাহেদী। আগামী ১৯ মে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ প্রতিযোগিতা সমাপ্ত হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. নাসের শাহরিয়ার জাহেদী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বাধারণত জ্ঞান ও প্রজ্ঞার চর্চা হয়। তবে এই জ্ঞান ও প্রজ্ঞার চর্চার জন্য প্রয়োজন হয় ‘সুস্থ দেহে, সুস্থ মন’। এ দুইয়ের সম্মিলন ঘটলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্ঞান ও প্রজ্ঞার চর্চা আরও এগিয়ে যাবে। অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘তোমরা খেলোয়াড় সুলভ মনোভাব এ প্রতিযোগিতায় এসেছো। আশা করি শেষ পর্যন্ত যেন সেটি বজায় থাকে। তিনি আরও বলেন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় খেলাধুলায় অনেক নাম করেছে। এটি যেন অব্যাহত থাকে, এই কামনা করি।

সভাপতির বক্তব্যে যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘একটি সুস্থ জাতি গঠনে, সুস্থ মানুষের কোনো বিকল্প নেই। তাই সুস্থ থাকতে হলে পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলা ও শরীর চর্চা করতে হবে।’ এ ধরনের প্রতিযোগিতা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পারস্পারিক বন্ধুত্ব ও মেলবন্ধনের দারুন সুযোগ তৈরি হয় বলেও জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন যবিপ্রবির শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. জাফিরুল ইসলাম, শরীর চর্চা শিক্ষা দপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. সিরাজুল ইসলাম। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন যবিপ্রবির ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক তাবাস্সুম ইসলাম নবনী। অনুষ্ঠানে বিশেষজ্ঞ বিচারকদের পক্ষে শপথপাঠ করেন এস এম শরাফত এবং খেলোয়াড়দের পক্ষে শপথ পাঠ করেন উম্মে হাফসা রুমকি।

আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় অ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতায় ১৫টি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় দুই শতাধিক খেলোয়াড় অংশগ্রহণ করেছেন। প্রায় ৩০টি ইভেন্টে খেলোয়াড়দের সাথে প্রায় শতাধিত শিক্ষক ও কর্মকর্তা এসেছেন। বিভিন্ন ইভেন্টে প্রায় ৮০ জনেরও বেশি বিশেষজ্ঞ বিচারকও রয়েছেন। তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠেয় খেলাসমূহ যবিপ্রবির কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ ও যশোর শহরস্থ শামসুল হুদা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page