ক্যাম্পাস

মানারাত বিশ্ববিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জন ও মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়াতে বহাল রাখার দাবিতে ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীরা।

আজ (১৮ জুলাই) বেলা ১১ টায় সম্মিলিত ক্লাবের ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের আশুলিয়া ক্যাম্পাস থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে আশুলিয়ার খাগান বাজার ঘুরে ক্যাম্পাসে আসে শিক্ষার্থীরা।

মানবন্ধনে সম্মেলিত ক্লাবের প্রতিনিধিরা বলেন, ইউজিসি কর্তৃক স্বীকৃত মানারাতের স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়া রেখে বিতর্কিত গুলশান ক্যাম্পাসে যাওয়ার কোন যৌক্তিকতা নেই। যে ক্যাম্পাসে পর্যাপ্ত ক্লাসরুম, লাইব্রেরি, ল্যাব, খেলার মাঠ নেই সে ক্যাম্পাসে যাওয়ার কোন মানে হতে পারে না।

এদিকে শিক্ষার্থীদের দাবি, সবার ভবিষ্যতের কথা চিন্তা না করে বিতর্কিত গুলশান ক্যাম্পাসে ক্লাস কার্যক্রম শুরু করতে চাপ দিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

তারা বলেন, আমাদের এই মানবন্ধন নিদিষ্ট কোন শিক্ষক কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে নয়। এটি ক্যাম্পাস নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অযৌক্তিক সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিবাদ। ইউজিসি কর্তৃক অনুমোদিত নয়, এমন ক্যাম্পাসে ক্লাস করতে আগ্রহী নন বলেও জানান তারা।

প্রতিনিধিরা বলেন, করোনা মহামারির সময়ে দীর্ঘদিন ক্যাম্পাস বন্ধ থাকায় আমদের পড়াশোনার অনেক ক্ষতি হয়েছে। তাই আমরা সময় নষ্ট হোক এটি কোনভাবেই চাই না। আমরা চাই, কর্তৃপক্ষ আমদের দাবিগুলো মেনে নিয়ে দ্রুত ক্লাসে ফেরানোর ব্যবস্থা করুক। ইউজিসি কর্তৃক অনুমোদিত ও যথাযথ সুযোগ-সুবিধা রেখে ক্যাম্পাস যেখানে নেওয়া হবে, আমরা সেখানে যেতে রাজি।

এদিকে, সম্প্রতি স্থায়ী ক্যাম্পাস নিয়ে ইউজিসিতে স্মারকলিপি দেয় সম্মিলিত ক্লাবের প্রতিনিধিরা। এরপর তাদের মধ্যে কয়েক জনের নাম উল্লেখ করে ব্যবস্থা নেয়ার নোটিশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এমন নোটিশ ঘৃণিত উল্লেখ করে তা অনতিবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা।

এছাড়াও, শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে না নিলে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেন সম্মিলিত ক্লাব প্রতিনিধিরা। এসময় বিশ্ববিদ্যলয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়াকে বাদ দিয়ে গুলশান ক্যাম্পাসকে স্থায়ী ক্যাম্পাস হিসেবে ঘোষণা দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) নির্দেশনা অনুযায়ী স্থায়ী ক্যাম্পাসের নিজস্ব (২ একর) ভূমি ও শিক্ষার্থীদের পর্যাপ্ত ফ্যাসেলিটির ব্যবস্থা না থাকায় গুলশান ক্যাম্পাসে যেতে ইচ্ছুক নয় শিক্ষার্থীরা। এজন্য ফল সেমিস্টার রেজিস্ট্রেশন বর্জন, ক্লাস বর্জনসহ ৬ দফা দাবিতে আন্দোলন করে বিশ্ববিদ্যায়টির শিক্ষার্থীরা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page