ক্যাম্পাসলিড নিউজ

দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনকে ঘিরে রাবি ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের ভাবনা

এনামুল হক, রাবি প্রতিনিধি:

আসছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। প্রতিবারের মতো জাতীয় নির্বাচনে ক্ষমতাসীন ও বিরোধী দলের হয়ে কাজ করে তাদের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো। নিজ নিজ দলের প্রতীকে নির্বাচন করা প্রার্থীকে সরকারপ্রধান বানাতে নানা ধরনের কর্মসূচি হাতে নেয় বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে ও স্মার্ট বাংলাদেশ তৈরির লক্ষ্যে আবারও আওয়ামীলীগ সরকারকে ক্ষমতায় দেখতে চান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। অন্য দিকে দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ সরকারের আওতায় নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল।

সর্বশেষ ২০০৮ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জয়লাভ করার পর ২০১৪ ও ২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় আওয়ামী সরকারের অধীনে। এ নিয়ে নানা আলোচনা-সমালোচনার পর এবারের নির্বাচনে বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল। তবে আগামী নির্বাচনে ক্ষমতায় আসার লক্ষ্যে সরব হয়ে ওঠেছে রাজনৈতিক বিভিন্ন দলগুলো। দীর্ঘ সময় ধরে ক্ষমতার বাহিরে থাকা দলগুলো নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে মাঠে নেমেছেন। গঠিত হয়েছে নতুন নতুন রাজনৈতিক দলও। সামনের জাতীয় নির্বাচন ঘিরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দের তাদের ভাবনা সম্পর্কে কথা বলেছেন ডেইলি দর্পণের সাথে।

রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া

বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক ও জনকল্যাণমূলক কাজগুলো জনগণের কাছে তুলে ধরতে চান রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া। তিনি বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আমরা প্রস্তুতি শুরু করবো খুব শীঘ্রই। নির্বাচন নিয়ে আমরা প্রতিবারের ন্যায় এবারও কিছু কর্মসূচি পালন করবো। সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে সরকারের উন্নয়ন মূলক কাজগুলো তুলে ধরবো। বাংলাদেশে বর্তমানে যে উন্নয়নের ধারা বয়ে যাচ্ছে তা অব্যাহত রাখতে আওয়ামীলীগ সরকারের কোনো বিকল্প নেই।

গোলাম কিবরিয়া আরও বলেন, দেশের শিক্ষা, চিকিৎসা, খাদ্য ও বাসস্থানসহ মানুষের সকল মৌলিক অধিকার পূরণে কাজ করে যাচ্ছে বর্তমান সরকার। যে দেশের মানুষ কখনো পদ্মা সেতুর কথা কল্পনাও করে নি, সেই দেশের মানুষ এখন সেই স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে নিয়মিত যাতায়াত করে। কারিগরি ও প্রযুক্তিগত শিক্ষাকে প্রাধান্য দিয়ে বর্তমান শিক্ষাবান্ধব এই সরকার যে কাজ করছে তা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। তাই যারা নতুন ভোটার আছে তারা যেন নৌকার পক্ষেই তাদের মূল্যবান ভোট প্রদান করেন। এছাড়া সরকার যে বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতাসহ সকল জনকল্যাণমূলক কাজ করছেন তা জনগণের চোখের সামনেই। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও ভোট দিয়ে জয় যুক্ত করতে রাবি ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি থাকবে।

রাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে টানা চতুর্থবারের মতো ক্ষমতায় আনতে সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে ভোট চাওয়ার কথা জানান বিশ্ববিদ্যালয়টির ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু। তিনি বলেন, কিছু দিন আগে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন শেষ হয়েছে। আর সেই নির্বাচনে রাবি ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতা-কর্মীর অক্লান্ত পরিশ্রমে এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন ভাইকে বিপুল ভোটে জয় যুক্ত করতে সক্ষম হয়েছি। তাই একইভাবে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে রাবি ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতা-কর্মী সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে যাবে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা সকলের কাছে পৌঁছে দিবে। পাশাপাশি দলমত নির্বিশেষে দেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছে আহ্বান করবো যাতে তারা নৌকায় ভোট দিয়ে দেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় অংশ নেয়।

রাবি শাখা ছাত্রদলের আহ্বায়ক সুলতান আহমেদ রাহী
রাবি শাখা ছাত্রদলের আহ্বায়ক সুলতান আহমেদ রাহী

এদিকে আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ। নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাইলে আহ্বায়ক সুলতান আহমেদ রাহী বলেন, আমরা চাই আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে করা হোক। জনগণের মনের আকাঙ্ক্ষা-ই হচ্ছে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন। কারণ বাংলাদেশের মানুষ তাদের সকল মৌলিক অধিকার হারানোর পর ভোটের অধিকারটাও হারিয়েছে। ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার আগে রাতের অন্ধকারে আওয়ামীলীগ সরকারের সন্ত্রাসী বাহিনীরা মানুষের ভোট নিজেই ব্যালটবন্দি করেছেন। তাই জনগণের এই ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে কর্মসূচি শুরু করবে। যাতে বর্তমান সরকারের অধীনে নয়, নির্দলীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন হয়।

রাবি শাখা ছাত্রদলের সদস্য সচিব সামসুদ্দিন চৌধুরী সানিন
রাবি শাখা ছাত্রদলের সদস্য সচিব সামসুদ্দিন চৌধুরী সানিন

‘আওয়ামী সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া সম্ভব না’ উল্লেখ করে শাখা ছাত্রদলের সদস্য সচিব সামসুদ্দিন চৌধুরী সানিন বলেন, দেশের একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হিসেবে আমরা মনে করি, এই ফ্যাসিস্ট সরকারের অধীনে কখনো সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া সম্ভব নয়। যেখানে ঢাকা-১৭ আসনের উপ-নির্বাচনে এই সরকারের মনোনীত প্রার্থী ভয় পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিরো আলমের মতো লোকের ওপর হামলা চালায়। সেখানে তারা কীভাবে সুষ্ঠু নির্বাচন দিবে? ২০১৪ সালের নির্বাচনে তারা ১৫৪ আসনে ভোট করেছে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় এবং ২০১৮ সালের নির্বাচনে আগের রাতে তারা ব্যালট বক্স পূরণ করেন। ফলে আওয়ামীলীগ সরকারের অধীনে কোনো অবস্থাতেই সুষ্ঠু নির্বাচন আশা করা যায় না। তাই কোনোভাবে এই সরকারের অধীনে ভোট হতে দেবো না। আমরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় চল্লিশ হাজার শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে এই অগণতান্ত্রিক সরকারের বিরুদ্ধে এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দেওয়ার জন্য শান্তি পূর্ণভাবে আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page