ক্যাম্পাসলিড নিউজ

জবির প্রাণীবিদ্যা বিভাগের বিরুদ্ধে ৪ বিভাগের অভিযোগ

জবি প্রতিনিধি:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) প্রাণীবিদ্যা বিভাগের বিরুদ্ধে চারটি বিভাগের ছাদ আটকে রাখার অভিযোগ উঠেছে।

আজ (২১ জুলাই) সরেজমিনে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান ভবনে অবস্থিত ভুগোল ও পরিবেশ বিভাগ, মনোবিজ্ঞান বিভাগ ও উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ছাদে যাওয়ার প্রবেশপথের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে রেখেছে প্রাণীবিদ্যা বিভাগ। ছাদে প্রবেশের ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেওয়ায় ছাদে যেতে পারছেন না অন্যান্য বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এতে ছাদ ব্যবহার করে গবেষণাসহ নানাবিধ পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন অন্যান্য বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

নোমান মাহমুদ নামের মনোবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী বলেন, ছাদ বন্ধ করে রাখায় আমরা তো এমনিতে ছাদ ব্যবহারই করতে পারিনা। এদিকে অনেকদিন ছাদ বন্ধ থাকায় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার অভাবে ছাদে পানি জমে মশা জন্ম নিচ্ছে। এতে আমাদের মধ্যে ডেঙ্গু আতঙ্ক কাজ করছে।

রাকিব হাসান নামে উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের এক শিক্ষার্থী বলেন, আমাদের ব্যবহারিক কার্যক্রম ও রিসার্সের কাজের জন্য ছাদের খোলা জায়গার প্রয়োজন হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ে জায়গা কম থাকায় ছাদেই আমরা টবে গাছ রেখে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গবেষণা কার্যক্রম করে থাকি। কিন্তু আমাদের ভবনের ছাদটি একটি বিভাগের নিয়ন্ত্রণে থাকায় আমরা চাইলেই ছাদে যেতে পারিনা। এতে আমাদের গবেষণা কার্যক্রমে অসুবিধার সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে জানিতে চাইলে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ছাদ আমাদের দখলে রেখে অন্যান্যদের ব্যবহারের সুযোগ না দেওয়ার তথ্যটি ভুল। কেউ ব্যবহার করতে চাইলে আমার কাছে চাবি চাইলেই আমি চাবি দিয়ে দিবো। তারা ছাদ ব্যবহার করতে পারবেন।

এ বিষয়ে ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মনিরুজ্জামান বলেন, ‘ভবনের ছাদ খোলা থাকা উচিৎ। অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকির একটা বিষয় রয়েছে। এই ভবে এতোগুলো বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী প্রতিনিয়ত অবস্থান করে। যেকোনো সময় দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। এছাড়াও বিজ্ঞান অনুষদ হওয়ায়, শিক্ষক শিক্ষার্থী গবেষণা বা ল্যাবের কাজে অনেকসময় রোদের প্রয়োজনেও ছাদে যাওয়া প্রয়োজন হয়। ছাদ সবার জন্য উন্মুক্ত থাকা উচিৎ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page