ক্যাম্পাসলিড নিউজ

ইবিতে নানা আয়োজনে তারুণ্যে’র ১৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ইবি প্রতিনিধি:

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন তারুণ্য’র ১৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনের মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত এতিম শিশুদের নিয়ে কেক কাটা ও বিভিন্ন বিনোদনমূলক কার্যক্রম করা হয়।

শনিবার (২৯ জুলাই) সকাল ১১টায় ডায়না চত্বরে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এমন ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজনের মাধ্যমে এতিম শিশুদের উপহার দিয়েছেন একটি আনন্দঘন মুহূর্ত।

দুপুরে খাবার খেয়ে এবং বিভিন্ন বিনোদনমূলক খেলাধুলায় মেতে একটি চমৎকার সময় পার করেছেন পদমদী প্রতিবন্ধী এতিখানা মাদ্রাসার ২৫ থেকে ৩০ জন সুবিধাবঞ্চিত এতিম শিশু। এর আগে বেলা ১২টায় তাদেরকে সাথে নিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কেটে তাদের মুখে তুলে দেন সংগঠনটির নেতৃবৃন্দরা।

এসময় সংগঠনটির সভাপতি মারুফ হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সাবেক সহ-সভাপতি, বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ও ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রভাষক ইয়ামিন মাসুম। অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সহ-সভাপতি ফারদিন সানি, সাবেক সভাপতি সাকির হোসেন ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম। এছাড়া সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক রিফাত মাশরাফি প্রত্যয় ও সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলামসহ সংগঠনটির প্রায় অর্ধশত সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলামের সঞ্চালনায় সাবেক সহ-সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ইয়ামিন মাসুম বলেন, তারুণ্য একটি অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন। এর দীর্ঘ ১৪ বছরের পথচলা ছিলো ছন্দময়। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই রক্তদান, সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, শিক্ষাসামগ্রী বিতরণ, বন্যার্তদের সহায়তাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। তোমরা যারা তারুণ্যের সদস্য হিসেবে আছো, পুঁথিগত বিদ্যার বাইরে বাস্তবসম্মত প্র্যাকটিক্যাল শিক্ষা অর্জনের একটি বড় প্লাটফর্ম বলেই তোমরা এর সাথে আছো। তোমাদেরকে একাডেমিক পড়ালেখার পাশাপাশি চাকরির পড়ালেখার প্রতিও গুরুত্ব দিতে হবে। যাতে এই প্রতিযোগিতামূলক চাকরির বাজারে নিজের যোগ্যতা দ্বারা নিজের জায়গাটা তৈরি করে নিতে পারো।’

শিশুদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘তোমরা সকলে তোমাদের বড় বড় স্বপ্নের কথা বলেছো। তোমাদেরকে ভালোভাবে পড়ালেখা করে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হবে। এবং সমাজের অন্য সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে দাঁড়াতে হবে।’

শেষে খেলায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। এছাড়া উপস্থিত সকল শিশুদের হাতে উপহার তুলে দেওয়া এবং এতিমখানা মাদ্রাসার জন্য উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য, অবারিত সম্ভাবনা নিয়ে জাগ্রত তারুণ্য’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ২০০৯ সালের ২৯ জুলাই সংগঠনটি যাত্রা শুরু করে। সংগঠনের সদস্যদের পারস্পরিক সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে সমাজের সার্বিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখাই এর লক্ষ্য। এই লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠার পর থেকেই রক্তদান, সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, শিক্ষাসামগ্রী বিতরণ, বন্যার্তদের সহায়তা, ভ্রাম্যমান লাইব্রেরি ও ক্যাম্পাস পরিষ্কারসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে সংগঠনটি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page