ক্যাম্পাসলিড নিউজ

ছাদ থেকে লাফ দিয়ে ইবি শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

শিক্ষার্থীদের হতাশা দূর করতে কাজ করতেন নওরিন

ইবি প্রতিনিধি:

স্বামীর সাথে মনোমালিন্যের জের ধরে ছাদ থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থী নওরিন নুসরাত স্নিগ্ধা।

মঙ্গলবার (৮ আগস্ট) বিকাল ৬টায় সাভারের আশুলিয়ায় ছয় তলা আবাসিক ভবনের ছাদ থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

নিহত নওরিন বিশ্ববিদ্যালয়েরল’এন্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০১৭- ১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি ছিলেন তিনি। এছাড়া ছিলেন ক্যাম্পাসে সাংস্কৃতিক অঙ্গনের এক পরিচিত মুখ। শিক্ষার্থীদের হতাশা দূর করতে কাজ করতেন তিনি। তিনি টাঙ্গাইল জেলার ইসলামবাগ গ্রামের খন্দকার ইসলামের মেয়ে।

বিভাগ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ২১ জুলাই চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর থানার কলা কান্দা গ্রামের মৃত জহিরুল আলমের ছেলে ইব্রাহিম খলিলের সাথে বিয়ে হয় নওরিনের। বিয়ের পর থেকেই স্বামীর সঙ্গে সাভারের আশুলিয়ায় একটি আবাসিক ভবনে অবস্থান করেন তিনি। জানা যায় গত দুই দিন স্বামীর সাথে মনোমালিন্য ছিলো নওরিনের। এরই জের ধরে আজ বিকেলে ভবনের ছাদ থেকে লাফ দেন তিনি।

ল’অ্যান্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সভাপতি সহকারী অধ্যাপক শাহিদা আক্তার বলেন, ‘তার মৃত্যুর বিষয়টি তার পরিবার থেকে নিশ্চিত হয়েছি। ঘটনাটা শুনে অনেকটা অবাকই হয়েছি। তার মধ্যে অনেক ট্যালেন্ট ছিল, সম্ভাবনা ছিল। আমি তার পরকালের সুখ-শান্তি কামনা করি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ বলেন, ‘ঘটনাটি আমি শুনেছি। খোঁজ নেওয়ার চেষ্টা করতেছি।’

নওরিনের সহপাঠীরা বলেন, ‘নওরীন একজন প্রাণবন্ত মানুষ ছিলেন। সে সবসময় শিক্ষার্থীদের হতাশা দূর করতে কাজ করেছেন। তার থেকে এমন কিছু আশা করা যায় না। এটা আসলেই আত্মহত্যা নাকি এর পেছনে অন্য ঘটনা আছে এর তদন্তের দাবি জানাই।’

এদিকে নওরীনের মৃত্যটিকে আত্মহত্যা বলে দাবি করেছেন পুলিশ। এছাড়া নিহতের পরিবারের পক্ষ  থেকেও থানায় কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।  তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার স্বামী ইব্রাহিম খলিলকে থানায় নেওয়া হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page