ক্যাম্পাস

স্থগিত শিক্ষকদের কর্মবিরতি 

আবারও ক্লাস পরীক্ষায় ফিরছে যবিপ্রবি

যবিপ্রবি প্রতিনিধি:

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (যবিপ্রবি) শিক্ষকদের কর্মবিরতিতে ২২ দিন বন্ধ থাকার পর রবিবার থেকে আবারও ক্লাস পরীক্ষায় ফিরছে।

শনিবার (১২ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্যালারীতে অনুষ্ঠিত শিক্ষক সমিতির সাধারণ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান শিক্ষকরা।

এ ব্যাপারে যবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির নেতারা বলেন, আগস্ট মাস শোকের মাস হওয়ায় এ মাসে শিক্ষক সমিতি কর্তৃক চলমান আন্দোলন সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, গত ২ জুলাই অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থবিভাগ ২০২৩-২৪ অর্থবছরে পরিচালন ও উন্নয়ন বাজেটের কতিপয় ব্যয় স্থগিত/ হ্রাসকরণ ও বিদেশ ভ্রমণ সীমিতকরণের পরিপত্র জারি করে। পরিপত্র অনুযায়ী, বিদ্যুৎ খাতে বরাদ্দকৃত অর্থের সর্বোচ্চ ৭৫ শতাংশ ও জ্বালানি খাতে বরাদ্দের সর্বোচ্চ ৮০ শতাংশ ব্যয়ের নির্দেশনা দেওয়া হয়। ৯ জুলাই এ নির্দেশনাকে সামনে রেখে ১০-৩১ জুলাই পর্যন্ত সব বিভাগের সব বর্ষের ক্লাস শ্রেণিকক্ষের পরিবর্তে অনলাইনে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় যবিপ্রবি কর্তৃপক্ষ। ১০ জুলাই যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন।

উল্লেখ্য, গত ২ জুলাই অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে পরিচালন ও উন্নয়ন বাজেটে কৃচ্ছ্ সাধনের পরিপত্রে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ব্যয় কমানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়। বিষয়টি আমলে নিয়ে যবিপ্রবি প্রশাসন ১০ থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত সব বিভাগের ক্লাস শ্রেণিকক্ষের পরিবর্তে অনলাইনে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এর বিরোধিতা করে কয়েক দিন বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা। তারা কৃচ্ছ্র সাধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব এসি, লিফট ও এসি বাস চলাচল বন্ধের দাবি তোলেন।এর মধ্যে ১৮ জুলাই যবিপ্রবি শিক্ষকরা অভিযোগ তোলেন, ১৬ জুলাই কিছু শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের গাড়ির চাবি ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। এ ছাড়া সব ভবনের লিফটও বন্ধ করে দিয়েছে। ১৮ জুলাই তারা শিক্ষক-কর্মকর্তাদের গাড়ি বন্ধ রাখতে বাধ্য করেছে।এরপর যবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি ওই দিনই জরুরি সভা করে লাঞ্ছনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত সব একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২ আগস্ট থেকে সব ক্লাস সশরীরে হওয়ার কথা ছিল। তবে শিক্ষকরা আসেননি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page