ক্যাম্পাসলিড নিউজ

রাবি শিক্ষার্থীর হারানো বিড়াল খুঁজে পেতে পুরস্কার ঘোষণা

রাবি প্রতিনিধি:

নিজের হারিয়ে যাওয়া পোষা বিড়ালকে খুঁজে পেতে ক্যাম্পাসে হারানো বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী। সেই সঙ্গে সন্ধানদাতাকে ১০ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়ার ঘোষণাও দেন ওই শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন একাডেমিক ভবনে তিনি এই বিজ্ঞাপ্তিটি লাগিয়েছেন।

ওই শিক্ষার্থীর নাম মোছা. তানিয়া খাতুন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলাম শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থী ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী।

হারানো বিজ্ঞপ্তিটিতে লেখা ছিল, বিশ্ববিদ্যালয়ের পশ্চিমপাড়া (ছাত্রী হল) থেকে বিড়াল ছানাটি নিখোঁজ হয়ে গিয়েছে। ছানাটির নাম সন্দেশ। গায়ের রঙ সম্পূর্ণ সাদা, লেজ সম্পূর্ণ বাদামী এবং মাথায় সামান্য বাদামী। ছানাটি হারানোর পর থেকে ওর সঙ্গী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। খাওয়া বন্ধ করে সারাক্ষণ কান্নাকাটি করছে। ক্যাম্পাস বা হল এরিয়াতে যদি কোনো সহৃদয়বান ব্যক্তি বিড়ালছানাটিকে দেখে থাকেন অনুগ্রহ করে জানাবেন। যদি কেউ শখ করে পালতে নিয়ে থাকেন, দয়া করে আরেকটি বাচ্চার কষ্টটা অনুভব করে হলেও ওকে দিয়ে দিন । বাচ্চাটা খুব কষ্ট পাচ্ছে একা একা।

এছাড়াও সন্ধানদাতাকে কৃতজ্ঞতাস্বরূপ দশ হাজার টাকা পুরস্কার প্রদান করা হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

এ বিষয়ে তানিয়া খাতুন বলেন, আমি মেসে থাকার সময় সেখানে একটি বিড়ালের ৩ টি বাচ্ছা হয়। পরে একটি মারা যায়। এমন সময় ক্যাম্পাস ছুটি হয়ে যায়। আমার পরীক্ষা থাকায় আমি মেসেই থেকে যাই। তখন থেকে বিড়াল ছানাদুটিকে নিজের সন্তানের মত আমি লালন করি। পরে হলে উঠলে সেখানে ছানা দুটিকেও নিয়ে আসি।

কিন্তু গত ৭ আগস্ট সেখান থেকে ‘সন্দেশ’ হারিয়ে যায়। তার শোকে বাকি ছানাটিও খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে মুষরে গেছে। আমিও অনেক খোজাখুজি করছি। কিন্তু কোথাও খুঁজে পাইনি। পরে আমি বাধ্য হয়ে বিজ্ঞাপন দিয়েছি। অনেক খোঁজও এসেছিল কিন্তু সেই বিড়ালগুলো আমার হারিয়ে যাওয়া ‘সন্দেশ’ নয়।

পুরস্কার ঘোষণার বিষয়ে তিনি বলেন, বিড়াল ছানা দুটিকে আমি নিজের সন্তানের মত লালন পালন করেছি। একজন মায়ের কাছে সন্তানের যেমন মূল্য, আমার কাছে ছানা দুটিরও তেমন মূল্য। তাই তাকে ফিরে পেতে আমি ১০ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছি। কিন্তু কেউ যদি তার সন্ধান দিতে পারে হয়তো খুশি হয়ে তার থেকে বেশিও দিতে পারি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page