ক্যাম্পাসলিড নিউজ

বঙ্গবন্ধুর ছবি মুছে দিয়েছেন ছাত্র ইউনিয়ন!

জাবি প্রতিনিধি:

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চিত্রকর্ম মুছে সেখানে ছাত্র ইউনিয়নের ‘ধর্ষক ও স্বৈরাচার থেকে আজাদী’ শিরোনামে গ্রাফিতি অঙ্কনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর একটায় মুরাদ চত্ত্বর থেকে মিছিল নিয়ে নতুন প্রশাসনিক ভবনের নিচে অবস্থান নেয় শাখা ছাত্রলীগের প্রায় শতাধিক নেতাকর্মী।

এ সময় সেখানে সহকারী প্রক্টর মহিবুর রহমান শৈবাল উপস্থিত হলে নেতাকর্মীদের নিয়ে  উপাচার্য অধ্যাপক নুরুল আলমের  সাথে দেখা করতে যান শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আকতারুজ্জামান হোসেল। এ সময় তারা উপাচার্যের কাছে, তারা কয়েকটি দাবি উপস্থাপন করেন। তাদের দাবি গুলো হলো,দাবিগুলোর মধ্যে যারা বঙ্গবন্ধুর গ্রাফিতি মুছে অন্য চিত্র অঙ্কন করেছে তাদের বিরুদ্ধে রাষ্টীয় আইনে ব্যবস্তা নিতে হবে, এই কাজে জড়িতদের প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে, আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে সেখানে পুনরায় বঙ্গবন্ধুর চিত্র অঙ্কন করতে হবে।

এসয় দাবি বাস্তবায়নের জন্য উপাচার্যকে  চব্বিশ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন নেতাকর্মীরা। এরমধ্যে দাবি বাস্তবায়ন না হলে কঠোর কর্মসূচীতে যাওয়ার হুশিয়ারী দেন।

মানববন্ধনে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান সোহেল বলেন, কিছু কুচক্রী মহল জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি মুছে ব্যাঙ্গাত্মক চিত্র এঁকেছে। তারা দেশের শত্রু। তার স্বাধীনতা বিরোধী। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি মুছে ফেলা সংবিধান বিরোধী কাজ। আমরা উপাচার্য স্যারের কাছে দাবি জানিয়েছি তাদের বিরুদ্ধে যেন রাষ্ট্রীয় আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

এ বিষয়ে জাবি ছাত্র ইউনিয়ন সংসদ একাংশের সভাপতি অমর্ত্য রায় বলেন, ২০২০ সালের আগ পর্যন্ত কলা ভবনের ওই দেয়ালে আমাদের আঁকা তৎকালীন উপাচার্য বিরোধী গ্রাফিতি ছিল। কিন্তু পরে কে বা কারা আমাদের ছবি মুছে দিয়ে ওই জায়গায় বঙ্গবন্ধুর ছবি এঁকে দেয়। তাছাড়া একই দেয়ালে পাশেই যেহেতু বঙ্গবন্ধুর আরেকটি ছবি আছে তাই আমরা চিন্তা করেছি ওটাতো মুছা যেতে পারে। এজন্য ওই জায়গায় আমরা ধর্ষণ বিরোধী গ্রাফিতি এঁকেছি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন কলা ভবনের উত্তর দিকের মুরাদ চত্ত্বর সংলগ্ন দেওয়ালে ধর্ষক ও স্বৈরাচার থেকে আজাদী’ শিরোনামে গ্রাফিতি দেখা যায়। সেই সাথে গ্রাফিতির নিচে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন লেখা দেখ যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের থেকে জানা যায়, গত ৬ ফেব্রুয়ারি রাতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি মুছে সেখানে ধর্ষণ বিরোধী গ্রাফিতি আঁকে ছাত্র ইউনিয়নের ছয় জন নেতাকর্মী।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page