ক্যাম্পাস

ভর্তি পরীক্ষা ঘিরে জাবিতে গাড়ি ভাড়া ও খাবারের দাম লাগামহীন

জাবি প্রতিনিধি:

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯ টায় গাণিতিক ও পদার্থবিজ্ঞান অনুষদ এবং ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজি ‘এ’ ইউনিটের পরীক্ষার মাধ্যমে শুরু হয়।

২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষা। এ বছর এক হাজার ৮৪৪ আসনের বিপরীতে ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থী সংখ্যা এক লাখ ৯৭ হাজার ৮৫১ জন। এই হিসাবে প্রতি আসনের বিপরীতে লড়ছেন ১০৮ জন শিক্ষার্থী।

দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভর্তি পরীক্ষার সময় অনেক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের আনাগোনা বেড়ে যায়। আর একে কেন্দ্র করে সুযোগ নিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের খাবারের দোকান ও রিকশা চালকরা। এসবের দাম স্বাভাবিক থেকে দুই/তিনগুণ বেশি নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা।

জানা যায়, দূরদূরান্ত থেকে আসা ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গেইটগুলো থেকে বিভিন্ন অনুষদ ও ফ্যাকাল্টিগুলোতে রিকশাগুলো কয়েকগুণ দাম হাকাচ্ছে। ফলে বিপাকে পড়ছেন ভর্তিচ্ছু- অভিভাবকরা।

অন্যদিকে খাবারের দোকানগুলো সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেইরি গেটের দোকান, প্রান্তিকের খাবারের দোকান উঁচু বট,নীচু বটের দোকানসহ দাম বাড়ানো হয়েছে।অস্থায়ী দোকানগুলোতে ভাত ১০ টাকার জায়গায় ১৫ টাকা, বয়লার মুরগী ৪৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৭০/৮০ টাকা , রুই মাছ যেখানে ৪৫ টাকা ছিল এখন ৬০/৭০/৮০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে, হাঁসের মাংস ১২০ টাকা থেকে ১৫০/১৮০ টাকা,গরুর মাংস ১০০ টাকা থেকে ১৫০/১৮০ টাকা। এইরকম সব খাবারের দাম বেশি রাখা হচ্ছে।

রংপুর থেকে পরীক্ষা দিতে আসা ভর্তিচ্ছু সিয়াম বলেন, আমি এখানে গরুর মাংস ও রুই মাছ খেতে বসেছিলাম দাম দিতে গিয়ে শুনি মাংসের দাম ১৮০ টাকা ও মাছের দাম ৮০ টাকা যা আমার কাছে অস্বাভাবিক মনে হল।

ঢাকা হতে পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থী আকাশ বলেন, আমি ডেইরি গেইট থেকে নতুন কলা ভবনে যায় আমার থেকে সে ৫০ টাকা নিয়েছে।

সহকারী প্রক্টর ও আ ফ ম কামাল উদ্দিন হলের ওয়ার্ডেন সহযোগী অধ্যাপক মো. ইখতিয়ার উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, আমরা গতকাল অভিযানে গিয়েছিলাম সেখানে দোকানিরা যেন খাবারের মূল্য তালিকা অনুযায়ী খাবার বিক্রি করে তা বলার জন্য ।তবে তারা বেশি দামে খাবার বিক্রি করে থাকলে এবং তার প্রমাণ যদি আমরা পেয়ে থাকি তাহলে সে সব দোকানে জরিমানা করা হবে আর অভিযোগ বেশি হয়ে থাকলে বন্ধ করে দেওয়া হবে।

সিওয়াইবি এর সভাপতি আরিফ বলেন,আমরা গতকাল ও অভিযান চালিয়েছিলাম যেন বেশি না রাখা হয়। তারা যদি বেশি রাখে তা প্রমাণিত হলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নিব।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page