ক্যাম্পাসলিড নিউজ

‘ভুল’ চিকিৎসায় জাবি সাবেক শিক্ষার্থীর মৃত্যু, বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

জাবি প্রতিনিধি:

রাজধানীর ল্যাবএইড‌ হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে গিয়ে ডা. মাহতাব স্বপ্নীলের ‘ভুল চিকিৎসায়’ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) সাবেক শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) দুপুর আড়াইটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বিভিন্ন বিভাগের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।

মানববন্ধনে মৃত রাহিবের স্ত্রী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪২তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী তাসমিয়া আফরোজ বলেন, ভুল চিকিৎসা ও চিকিৎসা অবহেলার কারণে আমার স্বামী মৃত্যুবরণ করেছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই। এছাড়াও হাইকোর্টে গঠিত তদন্ত কমিটি যেন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে রিপোর্ট পেশ করেন। তারা যেন তদন্ত করার সময় শুধু ডাক্তার ও ল্যাবএইড কর্তৃপক্ষের বক্তব্যকে প্রাধান্য না দেয়, এর সাথে পরিবারের ও সেখানে উপস্থিত ব্যক্তিদের বক্তব্যকেও গুরুত্ব দেওয়ার দাবি জানান তিনি।

এসময় তিনি ল্যাবএইড মেডিকেল ও ঐ ডাক্তারে লাইসেন্স বাতিল করার দাবি করেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৯তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী এস এম সাদাত হোসেন বলেন, ল্যাবএইড মেডিকেল ও চিকিৎসকদের ভুল চিকিৎসার কারণে রাহিব রেজা মারা গেছে। এটি একটি হত্যাকাণ্ড। আমরা প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং মৃত ব্যক্তির পরিবারের ক্ষতিপূরণ দাবি করছি। প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি এর একটি সুষ্ঠু বিচার চাই।

এসময় একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. সালাহ উদ্দিন রাজিব বলেন, দুর্ভাগ্যজনক বিষয় যে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে আমরাই একমাত্র দেশ যারা প্রাইভেট হাসপাতালেগুলোতে বেশি টাকা খরচ করি এবং পাবলিক হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা পায় না বলে যায় না। কিন্তু প্রাইভেট হসপিটালগুলোতে ইদানীং এরকম অরাজকতা বেড়েই চলছে আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

উল্লেখ্য, গত ১৫ ফেব্রুয়ারি রাহিব রেজা, একটি এন্ডোস্কোপি পরীক্ষার জন্য অফিস শেষে তাঁর সহকর্মীদের ল্যাবএইড হাসপাতালে গিয়ে মেডিক্যাল নেগ্লিজেন্স, ভুল চিকিৎসা, অসদাচরণ এবং যথাযথ স্বাস্থ্যসেবার অভাবের কারণে লাইফ সাপোর্টে থেকে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি মারা যান বলে পরিবারের অভিযোগ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page