ক্যাম্পাস

চবি পরিবেশ সংসদের ভিন্ন আঙ্গিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস পালন

চবি প্রতিনিধি:

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) সম্পূর্ণ ভিন্ন আঙ্গিকে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস পালন করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় পরিবেশ সংসদ (চবিপস)। শ্রদ্ধাস্তবক তৈরিতে সম্পূর্ণ পরিবেশ বান্ধব বুনো ফুল ও লতাপাতা ব্যবহার করা হয়।

মঙ্গলবার (২১ ফেব্রুয়ারী) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও ভাষার জন্য জীবন উৎসর্গ করা শহিদদের স্মরণে এ ভিন্ন ধরনের শ্রদ্ধা নিবেদন করে চবিপস।

বর্তমান সময়ে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্টকারী অন্যতম প্রধান দূষণ হলো মাটিদূষণ৷ অপার দেশপ্রেমে মাতৃভাষার জন্য জীবন উৎসর্গকারী শহীদগণের প্রতি সম্মানপ্রদর্শনে প্রিয় মাতৃভূমির ক্ষতি কখনোই কাম্য নয়। জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানরাও হয়তো এটা কখনোই চাইতেননা। অথচ মাতৃভাষা দিবসের শ্রদ্ধাস্তবকগুলো বেশিরভাগই ককশিট এবং প্লাস্টিকের ফুল ব্যবহার করে তৈরি করা হয়। পরবর্তীতে অপরিকল্পিত বর্জ্য ব্যবস্থাপনার কারণে খালে বা ব্রিজের নিচে ককশিট আর বর্জ্যের স্তর জমে যায়। এতে পানি প্রবাহের স্বাভাবিক গতি ব্যাহত হয়। সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি উঠে যায় রাস্তায়। কখনো হাঁটু সমান আবার কখনো কোমর সমান পানি উঠছে। এতে নগরে দেখা দিচ্ছে জলাবদ্ধতা। পচনশীল না হওয়ায় দূষিত হচ্ছে মাটি, কমছে উর্বরতা। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করার কথা মাথায় রেখেই পরিবেশবান্ধব পুষ্পস্তবক তৈরির উদ্যোগ নেয় চবিপস।

শ্রদ্ধাস্তবকে ব্যবহৃত ফুল ও লতাপাতা সংগ্রহ করা হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গাছগাছালী থেকে। এতে যে সকল দেশীয় বুনো লতা-পাতা এবং ফুলকে সচরাচর অবহেলার চোখে দেখা হয় সেসব ফুল দিয়েই সাজানো হয় স্তবকটি। এটি তৈরিতে প্রায় পঞ্চাশ ধরনের লতা-পাতা ও ফুল ব্যবহার করা হয়। ব্যবহৃত ফুলগুলোর মধ্যে ছিলো শিরিষ, সরিষা, লজ্জাবতী, ল্যান্টানা ছত্রা, ভাঁট, কানছিঁড়া, শিমুল ইত্যাদি ধরনের ফুল। এই ফুলগুলোর বিশেষ গুণ রয়েছে। যার মধ্যে হাতিশুঁড়, আসামলতা, ধুতুরা, লজ্জাবতী, ভাঁট, দাঁতরাঙ্গা, দন্ড কলস, ঝুমকোলতা, মারহাটিটিগা, শিরিষ, রক্তদ্রৌণ, ফণীমনসা, সাপ গাছ ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page