ক্যাম্পাস

আমদানি নির্ভরতা কমিয়ে রপ্তানিমুখী পণ্য উৎপাদন বৃদ্ধি করতে হবে: বাকৃবি উপাচার্য

বাকৃবি প্রতিনিধি:

দেশে খাদ্য শস্য উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। উৎপাদিত পণ্য যথাযথ বিপণনের মাধ্যমে টেকসই সমৃদ্ধি অর্জন করতে হবে। পঞ্চম শিল্প বিপ্লব আসতে খুব বেশি দেরি নেই। তাই আমাদের প্রযুক্তিগত জ্ঞান ও দক্ষতা আরো বৃদ্ধি করতে হবে। পরবর্তী শিল্প বিপ্লবের আগেই আমাদের আমদানি নির্ভরতা কমিয়ে রপ্তানিমুখী পণ্য উৎপাদন বৃদ্ধি করতে হবে। এজন্য সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহকে একযোগে কাজ করার আহবান জানান তিনি।

বাংলাদেশ সোসাইটি ফর ভেটেরিনারি এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ (বিএসভিইআর) কর্তৃক আয়োজিত ২৯তম উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান এসব কথা বলেন।

শনিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০ টার দিকে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন মিলনায়তনে ওই আন্তর্জাতিক বৈজ্ঞানিক সম্মেলনের অনুষ্ঠনের উদ্বোধনী আনুষ্ঠিত হয়।

তিনি আরও বলেন,চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রেক্ষাপটে প্রাণীজ পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধি ও প্রাণীস্বাস্থ্যের টেকসই উন্নতির জন্য গবেষকদের কাজ করতে হবে। পাশাপাশি মানুষের নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করার বিষয়টিতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে। এক্ষেত্রে সবচেয়ে নিরাপদ প্রযুক্তি ব্যবহারের দিকে নজর দিতে হবে এবং এসব প্রযুক্তি মাঠ পর্যায়ে কৃষকের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে হবে।

বিএসভিইআরের সভাপতি অধ্যাপক ড. ফরিদা ইয়াসমীন বারির সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. আরিফুল ইসলামের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাকৃবির ভেটেরিনারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল আউয়াল। এছাড়া অতিথি হিসেরে আরও উপস্থিত ছিলেন বাকৃবির প্যাথলজি বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষক অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল হোসেন, বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিএলআরআই) সাবেক মহাপরিচালক ড. নাথুরাম সরকার। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন আয়োজক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. মকবুল হোসেন এবং আমন্ত্রিত অতিথিদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন আয়োজক কমিটির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নাছরীন সুলতানা জুয়েনা।

এবছর বৈজ্ঞানিক সম্মেলনের প্রতিপাদ্য বিষয় নির্ধারণ করা হয়েছে ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রেক্ষাপটে প্রাণীস্বাস্থ্যের টেকসই উন্নতি এবং উৎপাদন’। এবিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাকৃবির প্যাথলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্যাথলজি বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এবং সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল হোসেনকে বার্ষিক লেকচার অ্যাওয়ার্ড তুলে দেন বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান। পাশাপাশি সার্জারি ও অবস্ট্রিটিক্স বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এবং বাকৃবির প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতার হোসেনকে ভেটেরিনারি গবেষণা এবং শিক্ষায় অসামান্য অবদান এবং নেতৃত্বের জন্য আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হয়।

দুইদিন ব্যাপী বৈজ্ঞানিক সম্মেলনে একটি সিম্পোজিয়াম সেশন, একটি প্লেনারি সেশন এবং আটটি ওপেন পেপার সেশন রয়েছে। একটি বার্ষিক বক্তৃতা, একটি মূল প্রবন্ধ এবং দুটি পূর্ণাঙ্গ বক্তৃতা সহ মোট ৭০টি মৌখিক উপস্থাপনা এবং ৮৪টি পোস্টার পেপার উপস্থাপন করা হবে। এর পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের একটি ইভেন্ট পরিচালনা করবেন ফুড এন্ড এগ্রিকালচার অরগানাইজেশনের (এফএও) বাংলাদেশের ইমার্জেন্সি সেন্টার ফর ট্রান্সবাউন্ডারি অ্যানিমাল রোগ বিষয়ক কান্ট্রি টিম লিডার ড. এরিক ব্রাম। রবিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকালে সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বৈজ্ঞানিক সম্মেলন শেষ হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page