ক্যাম্পাস

কর্মশালায় প্রদর্শিত হবে ৫৩৯ টি গবেষণার প্রকল্প

বাকৃবি প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেম (বাউরেস) কর্তৃক আয়োজিত হচ্ছে বার্ষিক গবেষণা অগ্রগতি কর্মশালা। এ কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৮ মার্চ। যা চলবে তিন দিনব্যাপী। কর্মশালাটির প্রতিপাদ্য বিষয় নির্ধারণ হয়েছে ‘ভূমি, খাদ্য এবং ভবিষ্যতের জন্য টেকসই এবং স্মার্ট কৃষি’। কর্মশালায় বাকৃবির বিভিন্ন অনুষদের সর্বমোট ৫ শ ৩৯টি গবেষণা প্রকল্পের ফলাফল উপস্থাপন করা হবে। কর্মশালায় গবেষণা মূল্যায়নের আন্তর্জাতিক মানদন্ড এইচ-ইনডেক্সের উপর ভিত্তি করে ১৭ জন শিক্ষককে গ্লোবাল রির্সাচ ইমপ্যাক্ট রিকোগনাইজেশন অ্যাওয়াড প্রদান করা হবে।এর মধ্যে সর্বোচ্চ স্কোরধারী ৫ জন এবং অনুষদভিত্তিক একজন করে সিনিয়র ও জুনিয়র শিক্ষকসহ মোট ১২ জনকে এই অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে।

শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এসব তথ্য জানান বাউরেসের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. জয়নাল আবেদীন। সকাল ১০ টায় বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) বাউরেসের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

লিখিত বক্ত্যবে ড. জয়নাল আবেদীন জানান, কর্মশালায় মোট ১৮ টি টেকনিক্যাল সেশন ও দুইটি পোস্টার সেশন অনুষ্ঠিত হবে। এসব সেশনে ৫৩৯ টি গবেষণা প্রকল্পের ফলাফল উপস্থাপন করা হবে। এর মধ্যে রয়েছে ৩৮৫ টি মৌখিক ও ১৫৪ টি পোস্টার উপস্থাপনা। উপস্থাপিত গবেষণা প্রকল্পগুলোর মধ্যে টেকনিক্যাল সেশন ভিত্তিক ১ জন করে মোট ১৮ জন এবং প্রতিটি পোস্টার সেশন থেকে ৩ জন করে মোট ৬ জনকে সেরা উপস্থাপকের পুরষ্কার প্রদান করা হবে।

তিনি আরও বলেন,পাশাপাশি কৃষিতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য খামার পর্যায়ে ৬ জন কৃষককে প্রফেসর ড. আশরাফ আলী খান স্মৃতি কৃষি পুরষ্কার প্রদান করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থায়নে পরিচালিত গবেষণাগুলো উন্নত মানের ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর জার্নালে প্রকাশনা বাবদ ২৩ জনকে সর্বোমোট ৮ লক্ষ ৫৩ হাজার ৩০০ টাকা প্রদান করা হবে।

বাউরেসের পরিচালকের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. শামসুল আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব সাজ্জাদুল হাসান এবং ফুড এন্ড এগ্রিকালচার অরগানাইজেশন (ফাউ)-বাংলাদেশের সিনিয়র টেকনিক্যাল উপদেষ্টা ড. কাতারজিনা জাপলিনা। অনুষ্ঠানে প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান।
সংবাদ সম্মেলনে বাউরেসের সিনিয়র বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. পরেশ কুমার শর্মা বলেন, এবছর গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ৯ কোটি ৬০ লক্ষ টাকা প্রদান করেছে। পাশাপাশি এবছরই প্রথম বারের মতো কোনো বেসরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে সিটি ব্যাংক লিমিটেড ৪ কোটি টাকা অনুদান প্রদান করেছে। হাওর ও চর অঞ্চলের কৃষি উন্নয়নের গবেষণার জন্য এই অর্থ প্রদান করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বাকৃবিতে ১৯৮৪ সালের ৩০ আগস্ট বাউরেস প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত বাউরেসের মাধ্যমে বাকৃবিতে ৩ হাজার ৮ শ ৭৪ টি গবেষণা প্রকল্প সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে মোট ৬ শ ৩২ টি গবেষণা প্রকল্প চলমান রয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page