সারাদেশ

দশ দিনের ব্যবধানে ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিতে ৫০ টাকা বৃদ্ধি: বিপাকে ক্রেতারা

রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি:

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় ব্রয়লার মুরগির দাম ১০ দিনের ব্যবধানে বৃদ্ধি পেয়েছে ৫০ টাকা। কয়েক সপ্তাহ ধরে মুরগির দাম দফায় দফায় বেড়েই চলছে। গত ১০ দিনের ব্যবধানে উপজেলার বাজারগুলোতে ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে কেজিতে ৫০-৬০ টাকা। এতে চরম বিপাকে পড়েছে ক্রেতারা। বিশেষ করে নিম্ন আয়ের মানুষ, যারা বেশি দাম হওয়ায় গরু, খাসির মাংসের পরিবর্তে মাংস হিসেবে ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে ব্রয়লার মুরগির মাংসকেই বেছে নিয়েছিল। মীরডাঙ্গী বাজারে কিনতে আসা আঃ রহমান জানান, “আমাদের মতো গরিব মানুষদের পক্ষে আর মনে হয় মাংস খাওয়া হবেনা। গরু ও খাসির মাংস তো দামের জন্য খেতেই পারিনা যদিও ব্রয়লার খাচ্ছিলাম এখন আর সেটারও দাম অনেক।”

রবিবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) উপজেলার পৌরশহরসহ বিভিন্ন বাজারের ব্রয়লার মুরগির কয়েকটি বাজার ঘুরে এইসব তথ্য পাওয়া গেছে। রাণীশংকৈল পৌরবাজারের মুরগি বিক্রেতা মিলন হোসেন, জাফরুল ইসলাম, খায়রুল, সেলিম, বন্দর গুদরি বাজারের ফরিদ, জিয়াউর, মুক্তারুল, মাঈনউদ্দিন এবং কাতিহার বাজারের আশির হোসেন লিটু, জানান, দশ দিনের ব্যবধানে ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে কেজিতে ৫০ টাকা। সোনালি মুরগির দাম বেড়েছে কেজিতে ৭০ টাকা পর্যন্ত। গত ১০ দিন আগে গোটা ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা। এবং কাটা ব্রয়লার মুরগির মাংস প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ২১০- ২২০ টাকা।যা এখন প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ২২০ থেকে ২২৫ টাকা। আর কাটা মাংস বিক্রি হচ্ছে ২৭০-২৮০ টাকা। অপরদিকে সোনালী (পাকিস্তানী) মুরগি বিক্র হচ্ছে ২৭০ টাকা থেকে এখন ৩২০ টাকায়। দাম বৃদ্ধির বিষয়ে ব্যবসায়ীরা বলছেন, বাজারে মুরগির ফিডের দাম বৃদ্ধির কারণে খামারগুলোতে উৎপাদন কমে গেছে তাই সরবরাহ কম। পশ্চিম বনগাঁও পোল্ট্রি ফার্মের মালিক (আরতদার) আরিফ হোসেন, পীরগঞ্জের মো.আলম, নেকমরদের আব্দুল কাদের, পৌরশহরের আনোয়ার আর্মি জানান, বাজারে মুরগি কম আসছে। মুরগির খাদ্য ফিডের বস্তা আগে কিনতাম ২৭০০-২৮০০ টাকায় এখন কিনতে হচ্ছে ৩৫০০-৩৬০০ টাকায়। আগে আমরা কাজি, নারিস এবং আফতাব ফার্ম থেকে প্রতি ব্রয়লারের বাচ্চা কিনতাম ২৫- ৩০ টাকা, বর্মমানে কিনতেছি ৫৫- ৬০ টাকা। তাই দাম বেড়েছে।

এছাড়াও ব্রয়লার মরগি থেকে পাকিস্তানি মুরগিতে লাভ বেশি হওয়ায় খামারিরা ব্রয়লার মরগির ব্যবসা আসতে আসতে গুটিয়ে নিচ্ছে বলে অনেক বিক্রেতা জানান।

রাণীশংকৈল প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মৌসুমী আক্তার বলেন, ফিডের মূল্যবৃদি এবং মুরগি সরবাহ কমের কারণে ব্রয়লার মুরগির দাম সারাদেশের ন্যায় এ উপজেলায় কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে খুব তাড়াতাড়ি এটি স্বাভাবিক পর্যায়ে ফিরে আসবে বলে তিনি জানান।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page