জাতীয়

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হলেন ড. শামসুল আলম

ফারুক হোসেন:

২২তম জাতীয় সম্মেলনে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করা হয়েছে। শনিবার (২৪ ডিসেম্বর) রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে দ্বিতীয় অধিবেশনে নবনির্বাচিত সভাপতি শেখ হাসিনা উপদেষ্টা পরিষদেন সদস্য হিসেবে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড.শামসুল আলমের নাম ঘোষণা করেন।

এর আগে ২০২১ সালে ১৮ জুলাই গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করেন এবং ২০২২ সালে ২৪ মে আওয়ামীলীগের সভানেত্রী দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হিসেবে
ড.শামসুল আলমকে মনোনিত করেছিলেন।

প্রথিতযশা শিক্ষাবিদ, পরিকল্পনা কমিশনের সাবেক সফল সিনিয়র সচিব, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট সদস্য ও সাবেক এডজাংক্ট ফ্যাকাল্টি, ২১শে পদকপ্রাপ্ত শিক্ষাবিদ, অসংখ্য গ্রন্থের প্রণেতা, প্রফেসর ড. শামসুল আলম আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হিসেবে মনোনিত করায় চাঁদপুর জেলা ও মতলব উত্তর- দক্ষিন উপজেলার আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনগুলো তাঁকে উষ্ণ অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।

এ দিকে প্রফেসর ড. শামসুল আলম ২০০৯ সালে পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য হিসেবে যোগদান করে দীর্ঘ ১২ বছর অত্যন্ত সুনাম ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী’র আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করেছেন। একজন দূরদর্শী পরিকল্পনাবিদ ও দক্ষ প্রশাসক প্রফেসর ড. শামসুল আলমকে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব প্রদান করায় এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য করার মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন স্হানীয় আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশাজীবী মানুষ।

অধ্যাপক ড. শামসুল আলম ছাত্র জিবনে ছাত্রলীগের একজন সক্রিয় কর্মী ছিলেন। ১৯৭১ সালে তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানের শোষণ ও অত্যাচারের হাত থেকে পূর্ব পাকিস্তানের বাঙালী নাগরিকদের বাঁচানোর জন্যে যাঁরা জীবন বাজি রেখে মুক্তি-সংগ্রামে বিভিন্ন কর্মকান্ডে অংশ গ্রহণ করেছিলেন তাদের মধ্যে ড. শামসুল আলম একজন বাংলাদেশের বীর মুুক্তিযোদ্ধা।

ড. শামসুল আলম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্যসহ বেশ কয়েকটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তাঁর মেধা, প্রজ্ঞা, বিচক্ষণতা, দূরদর্শী চিন্তা ও চেতনার মাধ্যমে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করছেন। তাঁর সুদীর্ঘ কর্মজীবনে সফল শিক্ষকতার পাশাপাশি পরিকল্পনা কমিশনে দায়িত্ব পালনকালীন দারিদ্র বিমোচন কৌশলপত্র প্রণয়ন ও পুনর্বিন্যাস, ষষ্ঠ, সপ্তম ও অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা প্রণয়ন, জাতীয় টেকসই উন্নয়নের কৌশলপত্র, শতবর্ষের ডেল্টা প্ল্যানসহ নানা উন্নয়নমুখী পরিকল্পনা প্রণয়নের মধ্য দিয়ে দেশকে উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে নিয়ে গেছেন। জাতীয় অর্থনীতিতে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরুপ তিনি একুশে পদক লাভ করেছেন। ব্যক্তিজীবনে তিনি অত্যন্ত বিনয়ী ও সজ্জন ব্যক্তি।

ড. শামসুল আলম ১৯৫১ সালের ১ জানুয়ারি চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। পারিবারিক জীবনে তার স্ত্রী, দুই ছেলে ও দুই নাতনী রয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

You cannot copy content of this page